জেএসসি বীজগণিত সাজেশন-সৃজনশীল প্রশ্ন

Sharing is caring!

NT Bangla বীজগণিত সাজেশন-সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর: পাঠ্যবই অনুসরণ করে বোর্ড ম্যানুয়াল অনুযায়ী গুরুত্বপূর্ণ সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর সহ দেওয়া হয়েছে। বিগত সকল বোর্ড পরীক্ষার সৃজনশীল প্রশ্নোতর তুলে ধরা হয়েছে যা শিক্ষার্থীদের দক্ষতা অর্জনে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। কম পরিশ্রমে অধিক জ্ঞান অর্জনের লক্ষ্যে সৃজনশীল প্রশ্নোত্তরগুলি ব্যাখ্যা সহ সাজেশনটিতে রয়েছে।

সৃজনশীল প্রশ্ন কাঠামো

সৃজনশীল প্রশ্ন পদ্ধতিতে পাঠ্যবইয়ের বিষবস্তুর আলোকে তৈরি করা হয় মৌলিক উদ্দীপক। প্রতিটি উদ্দীপককে কেন্দ্র করে তৈরি করা হয় ৩ স্তরের প্রশ্ন-ক. সহজ, খ. মধ্যম, গ. কঠিন। এপদ্ধতিতে দূর্বল ও মেধাবী শিক্ষার্থীর মধ্যে অত্যন্ত সুচারুভাবে পার্থক্য নিরূপণ করা সম্ভব।

উদ্দীপক (Stem)

উদ্দীপক/দৃশ্যকল্প হচ্ছে পাঠ্য বিষয়ের আলোকে তৈরি একটি অনুচ্ছেদ, সূত্র, সমীকরণ, সারণি, ডায়াগ্রাম, চিত্র ইত্যাদি। সাধারণত উদ্দীপকটি হয় মৌলিক, সম্পূর্ণ নতুন এবং বাস্তব জীবনের সঙ্গে সম্পর্কত। সৃজনশীল প্রশ্নটি কতটুকু মানসম্পন্ন হলো তা মূলত উদ্দীপকের মানের উপর নির্ভর করে। উদ্দীপকে বর্ণত বিষয়বস্তুর আলোকেই তিনটি প্রশ্ন (ক, খ ও গ অংশ) তৈরি করা হয়ে থাকে। উদ্দীপক বিবেচনায় না রেখে যদি ‘ক’ অংশের উত্তর দেওয়া সম্ভব হতে পারে কিন্তু ‘খ’ ও ‘গ’ অংশের উত্তর দেওয়া সম্ভব হবে না। সহজভাবে বলা যায়, প্রশ্নগুলো উদ্দীপকের বিষয়বস্তুর আলোকে না হয়ে থাকলে বা উদ্দীপকটি ঢেকে রেখে যদি ‘খ’ ও ‘গ’ অংশের উত্তর করা যায় তবে বুঝতে হবে উদ্দীপকটি সঠিকভাবে প্রণীত হয় নি।

ক. সহজ স্তর: ‘ক’ নম্বর প্রশ্নে সাধারণ প্রয়োগ দক্ষতা যাচাই করা হয়। প্রশ্নটি সহজ হয়। দৃশ্যকল্পে প্রাপ্ত তথ্য থেকে এ প্রশ্নের উত্তর করতে হয়। উত্তরের মান -২

খ. মধ্যম স্তর: ‘খ’ নম্বর প্রশ্নের প্রয়োগ দক্ষতা যাচাই করা হয়। এটি মোটামুটি কঠিন প্রশ্ন। দৃশ্যকল্প অথবা দৃশ্যকল্পসহ ‘ক’ নম্বর প্রশ্ন থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে সূত্র প্রয়োগে ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণের মাধ্যমে এটির উত্তর করতে হয়। উত্তরের মান-৪

গ. কঠিন স্তর: ‘গ’ নম্বর প্রশ্নেও প্রয়েঅগ দক্ষতা যাচাই করা হয়। এটি প্রশ্নের সবচেয়ে কঠিন অংশ। এ স্তরে প্রদত্ত তথ্যের আলোকে নতুন পরিস্থিতিতে সূত্র প্রয়োগ এবং তার ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণের মাধ্যমে উত্তর করতে হয়। উত্তরের মান-৪

জে এস সি বীজগণিত সাজেশন-সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর পেতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন।

মানবন্টন

বোর্ড ম্যানুয়াল অনুযাীয় গণিত বিষয়ের পূর্ণমান-১০০। এর মধ্যে সৃজনশীল অংশের মান-৭০ এবং বহুনির্বাচনি অশের মান-৩০।

বহুনির্বাচনি প্রশ্ন: ৩০ নম্বর- মোট ৩০টি প্রশ্ন থাকবে। ৩০টিরই উত্তর দিতে হবে। প্রতিটি প্রশ্নের মান-১ নম্বর।

সৃজনশীল প্রশ্ন: ৭০ নম্বর

মোট ১১টি প্রশ্ন থাকবে। ক-বিভাগ পাটিণিত অংশ হতে দুটি, খ-বিভাগ বীজগণিত অংশ হতে দুটি, গ-বিভাগ জ্যামিতি অংশ হতে ২টি এবং ঘ-বিভাগ পরিসংখ্যান হতে ১টি করে মোট ৭টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। প্রত্যেকটি প্রশ্নের মান -১০। বীজগণিত অংশে বীজগণিতীয় সূত্রাবলী ও প্রয়োগ থেকে ১টি, বীজগণিতীয় ভগ্নাংশ থেকে ১টি এবং সরল সমীকরণ থেকে ১টি নিয়ে মোট ৩টি প্রশ্ন থাকবে। যে কোনো ২টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।

NTBangla সাজেশনটির বৈশিষ্ট্যটি হল শিক্ষার্থীদের জন্য সহজ বাংলা ভাষায় পাঠ্য বইয়ের সামঞ্জস্য রেখে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বিশ্লেষণ করা। পরীক্ষায় কমন উপযোগী প্রশ্নোত্তর নিয়ে আলোচনা। বোর্ড কর্তৃক নমুনা প্রশ্নোত্তর বিশ্লেষন করে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র কেমন হয় তা সঠিক ধারণা দেওয়া হয়েছে।

গণিতের প্রত্যেকটি অধ্যায় থেকে গুরুত্বপূর্ণ সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর সহ দেওয়া হয়েছে। আমার বিশ্বাস পাঠ্যবইয়ের পাশাপাশি সাজেশনটি অধ্যায়ন করলে সব ধরনের শিক্ষার্থীরা সহজে বুঝতে এবং পরীক্ষায় সাফল্য আনতে পারবে। সাজেশনটিতে সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর কিভাবে করতে হয় তা সঠিক ভাবে দেখানো হয়েছে। অধিক অনুশীলন ও চর্চার মাধ্যমে জ্ঞান বৃদ্ধি ও দক্ষতা অর্জনের সহায়ক হিসাবে সাজেশনটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

আশা রাখি পাঠ্য পুস্তকের পাশাপাশি সাজেশনটি অনুশীলন করলে দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে। শিক্ষাই জাতীয় জীবনের সর্বোচ্চ স্তরের পূর্বশর্ত। গতিশীলভাবে চ্যালেঞ্জিত ২০ টি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দক্ষ ও শিক্ষিত জনবলের প্রয়োজন বাংলাদেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির দিকে নিয়ে যাওয়া। মাধ্যমিক শিক্ষার অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হল ভাষা আন্দোলন এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে একটি দেশ গঠনে শিক্ষার্থীর সহজাত বুদ্ধি এবং সম্ভাবনার বিকাশ ঘটানো।

এছাড়াও এই স্তরের শিক্ষার উদ্দেশ্য প্রাথমিক স্তরে প্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষার প্রাথমিক জ্ঞান এবং দক্ষতা সম্প্রসারণ ও একীকরণের মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষাকে যোগ্য করে তোলা। জ্ঞানের এই প্রক্রিয়াটির আওতায় দেশের অর্থনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পরিবেশগত পটভূমির পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীদের দক্ষ ও সক্ষম নাগরিক হওয়া মাধ্যমিক শিক্ষার বিষয়।

এই ওয়েব সাইটের আমার লক্ষ্য সরকারের আধুনিক ডিজিটাল শিক্ষার অগ্রগতি আনতে হবে। তদুপরি, দরিদ্র শিক্ষার্থীদের সহায়তা এবং সকল শিক্ষার্থী ঘরে বসে দক্ষতা অর্জন। সুতরাং, আমার অনুরোধ শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা সকলেই আমার ওয়েব সাইটে প্রবেশ করুন এবং আমাকে কাজ করতে উৎসাহিত করুন।

Leave a Comment